সামনে এসে বলুক আমি কী সন্ত্রাস করেছি: শামীম

শামীম ওসমানের অভিযোগ, তিনি বরাবরই বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে লড়াই করে এসেছেন। এ কারণেই বিএনপি ও জামায়াত তাঁকে সন্ত্রাসী বা গডফাদার বলে অপপ্রচার চালানোর চেষ্টা করে।
গতকাল বুধবার নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থিতা চূড়ান্ত হওয়ার পর প্রথম আলোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন শামীম ওসমান।
শামীম ওসমান নামটি এলেই অনেকে আতঙ্কিত হন। আপনাকে সন্ত্রাসী ও গডফাদার বলা হয়। এর জবাবে কী বলবেন? শামীম ওসমান বলেন, ‘আমি নারায়ণগঞ্জে গোলাম আযমের প্রবেশ নিষিদ্ধ করে দিয়েছিলাম। ওই ঘটনার পর ক্ষুব্ধ হয়ে তারা আমাকে সন্ত্রাসী বলে। এ ছাড়া ১৯৯৮ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকাকালে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া লংমার্চের ঘোষণা দেন। এখানে আসার আগেই ট্রাকের জ্যামে লংমার্চ আটকে যায়। আমি তখন আমার লোকজন নিয়ে জ্যাম ছাড়াতে যাই। কিন্তু তারা আমাকে সন্ত্রাসী বানায়। এখনো তারা সেই অপপ্রচার চালাচ্ছে। আপনি এলাকার মানুষের সঙ্গে কথা বলেন। দেখেন, তারা আমার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ জানায় কি না। কেউ সামনে এসে বলুক, আমি কী সন্ত্রাস করেছি?’
আওয়ামী লীগের সমর্থনে মেয়র পদে লড়ছেন বলে দাবি করেন শামীম ওসমান। দলে একাধিক প্রার্থী সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘দুজন প্রার্থী প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। তাঁরাও আমার সঙ্গে কাজ করবেন বলে আশা রাখি।’
একসময় সাংসদ ছিলেন। মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাবও পেয়েছেন। কিন্তু এত কিছুর পরও সিটি করপোরেশনের মেয়র হতে চাইছেন কেন? শামীম ওসমানের উত্তর, ‘আমার কাছে নারায়ণগঞ্জটাই বাংলাদেশ। এখানেই বড় হয়েছি। সবকিছু নারায়ণগঞ্জকে ঘিরে। মেয়র হলে এলাকার জন্য আরও বড় পরিসরে কাজ করা যায়। তাই মেয়র পদে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ মেয়র হলে তিনি স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগ ও অবকাঠামো উন্নয়নের দিকে নজর দেবেন বলে জানান।
শামীম ওসমানের স্বপ্ন, নারায়ণগঞ্জ থেকে ২০ মিনিটে ট্রেন যাবে ঢাকায়। ২৫ মিনিট পর পর ট্রেন চলবে। পার্ক হবে। বিদেশিরা আসবে। নারায়ণগঞ্জ হবে স্কাই সিটি। স্কাই সিটি বলতে কী বোঝাচ্ছেন? উত্তরে বলেন, ‘আকাশের রঙ আকাশি। মেঘের রঙ সাদা। নারায়ণগঞ্জের সব বাড়িঘর আকাশি ও সাদা রঙ করে দেওয়া হবে। এভাবে নারায়ণগঞ্জ হবে স্কাই সিটি। ঢাকা থেকে মানুষ আসবে এই শহর দেখতে।’
সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে কীভাবে মূল্যায়ন করছেন? শামীম ওসমান বলেন, বিএনপি বলছে, আওয়ামী লীগ সরকার গণবিচ্ছিন্ন। কিন্তু আওয়ামী লীগের বাস্তব অবস্থা কী, সেটি এই নির্বাচনে প্রমাণিত হবে। একাধিক প্রার্থীর কারণে দল ক্ষতিগ্রস্ত হবে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘প্রতিক্রিয়াশীল শক্তি এতে লাভবান হবে। কিন্তু নির্বাচনে মূলত বিএনপির প্রার্থীর সঙ্গে আমার লড়াই হবে।’ জয়ের ব্যাপারে তিনি শত ভাগ আশাবাদী বলে জানান।

সূত্রঃ প্রথম আলো

This entry was posted in প্রথম আলো. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s