ইভিএমে কারচুপির আশঙ্কা তৈমুরের

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন-ইভিএম ব্যবহারের বিরোধিতা করে বিএনপি সমর্থিত মেয়র পদপ্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার আবারো বলেছেন, এ ব্যবস্থায় ‘হ্যাকিং ও কারচুপি’ হবে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।

শুক্রবার বিকেলে শহরের চাষাঢ়া জিয়া হলে ইভিএম ব্যবহার নিয়ে নির্বাচন কমিশন আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি বলেন, বিশ্বের অনেক দেশে ইভিএম পদ্ধতি বাতিল করা হয়েছে। এতে হ্যাকিং ও কারচুপির আশঙ্কা রয়েছে।

“আমি নির্বাচন কমিশনকে এ বিষয়ে চিঠি দিয়েছি। কমিশন শিগগিরই এ বিষয়ে শুনানি করবে বলে জানিয়েছে।”

তৈমুরের আপত্তির জবাবে ইভিএম বিশেষজ্ঞ হিসেবে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক লুৎফুল কবীর বলেন, ইভিএম ব্যবহার করে কারচুপির আশঙ্কা ঠিক নয়। এই মেশিনে প্রতিটি ভোট পড়ার পর পোলিং এজেন্ট তা দেখতে পাবেন। তাই ফলাফল পাল্টে ফেলার সুযোগ নেই।

তাছাড়া ইভিএমের তথ্য ১০০ বছর পর্যন্ত সংরক্ষিত থাকে। ফলে ভোটের পর কেন্দ্রের বাইরে কারচুপিরও সুযোগ থাকছে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

অধ্যাপক লুৎফুল কবীর সভায় উপস্থিত প্রার্থী ও তাদের প্রতিনিধিদের ইভিএম দেখিয়ে এর মাধ্যমে ভোট দেওয়ার পদ্ধতি সম্পর্কে ধারণা দেন।

মেয়র পদের প্রার্থীদের মধ্যে তৈমুর আলম খন্দকার, সাবেক সাংসদ শামীম ওসমানের পক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য আনিসুর রহমান দীপু, নারায়ণের সাবেক পৌর মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে রেজাউল ইসলাম রনি এবং কাউন্সিলর পদের প্রার্থীরা এই মতবিনিময় সভায় অংশ নেন।

এ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা বিশ্বাস লুৎফর রহমান বলেন, “ইভিএম নতুন কিছু নয়। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে একটি ওয়ার্ডে পরীক্ষামূলকভাবে এ মেশিন ব্যবহার করা হয়েছিল। নারায়ণগঞ্জে ২৭টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৯টির ভোটগ্রহণ ইভিএমে হবে।

এ পদ্ধতি সম্পর্কে ভোটারদের অবহিত করতে স্থানীয় কেবল অপারেটরের মাধ্যমে প্রচার চালানোর পাশাপাশি শহরে ডিজিটাল ব্যানার বসানো হবে এবং বিলি করা হবে লিফলেট। এছাড়া প্রতি ওয়ার্ডের ভোটারদের প্রশিক্ষণেরও ব্যবস্থা করা হবে।

৩০ অক্টোবর ৫৮টি কেন্দ্রে ৪৫০টি বুথে ইভিএম ব্যবহার করে ভোট দেবে এক লাখ ৪৮ হাজার ২৯ জন ভোটার।

অধ্যাপক লুৎফুল কবীর জানান, ইভিএম পদ্ধতিতে দুটি অংশ থাকবে। একটি কন্ট্রোল ইউনিট, অন্যটি ব্যালট ইউনিট। কন্ট্রোল ইউনিট পরিচালনা করবেন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার। আর গোপন বুথে থাকবে ব্যালট ইউনিট। আগের ব্যবস্থায় সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ভোট দেওয়ার জন্য ব্যালট পেপার দিতেন। আর ইভিএম পদ্ধতিতে কর্মকর্তা কন্ট্রোল ইউনিটের বাটনে চাপ দিলেই ভোটার তার সামনে থাকা ভোটিং ইউনিটে প্রার্থীদের নাম ও প্রতীক দেখতে পাবেন। পছন্দের প্রার্থীর নাম ও প্রতীকের পাশের বোতামে চাপ দিলেই সবুজ বাতি জ্বলে উঠবে। ভোট দেওয়া সম্পন্ন হলে বিপ শব্দ করে লাল বাতি জ্বলবে।

প্রত্যেক ভোটের পর ডিসপ্লেতে দেখা যাবে, কতজন ভোটার ভোট দিলেন। এতে ভোট বাতিল হওয়ারও কোনো সুযোগ নেই।

“ইভিএম ব্যবহারে আমরা প্রার্থীদের চেয়ে ভোটারদের নিয়ে বেশি চিন্তিত। কারণ সব ভোটার যাতে ঠিকমতো ভোট দিতে পারেন, তা নিশ্চিত করতে হবে,” লুৎফুল কবীর বলেন।

সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদপ্রার্থী কানিজ ফাতেমা বলেন, “আমরা ইভিএম চাই না। কারণ ইভিএম সর্ম্পকে আমাদের আগে থেকে কোনো ধারণা নেই। এতে ভোটাররা বিভ্রান্ত হবেন।”

অন্যদিকে কাউন্সিলর প্রার্থী কামরুল হাসান মুন্না বলেন, “বিশ্ব প্রযুক্তির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদেরও পিছিয়ে থাকলে চলবে না। ইভিএম ব্যবহার হলে আমাদের কোনো আপত্তি নেই।”

কাউন্সিলর প্রার্থী আটক, মাইক জব্দ

আচরণবিধি ভঙ্গ করায় শুক্রবার সিদ্ধিরগঞ্জে এক কাউন্সিলর প্রার্থীকে আটক এবং এক মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে নির্বাচন কমিশন।

সহকারী রিটার্নিং অফিসার আলাউদ্দিন মিয়া জানান, শুক্রবার সকালে ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ওমর ফারুক আচরণবিধি ভঙ্গ করে মিছিল করায় তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাকে সতর্ক করে দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়

এছাড়া ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী আসমা বেগমের পক্ষে মাইকিং করায় দুটি মাইক জব্দ এবং কুই যুবককে আটক করা হয়। পরে আসমা বেগমকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সূত্রঃ বিডিনিউজ২৪ | ১৫ অক্টোবর ২০১১

This entry was posted in বিডিনিউজ২৪. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s