ঘুষের মামলায় তৈমুরের ১৪ বছর কারাদণ্ড

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারকে দুটি ঘুষের মামলায় ৭ বছর করে মোট ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিশেষ জজ আদালত-৯ এর বিচারক খোন্দকার কামালউজ্জমান এ রায় দেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক মোঃ গোলাম মোস্তফা গত বছরের ১৪ আগস্ট ঘুষ নেয়ার অভিযোগে তৈমুরের বিরুদ্ধে পল্টন থানায় চারটি মামলা দায়ের করেন। বৃহস্পতিবার এর দুটির রায় হল।

একটি মামলার এজাহারে বলা হয়, তৈমুর আলম বিআরটিসির চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় বাস কেনার জন্য প্রগতি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করেন। ওই চুক্তি অনুযায়ী রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান প্রগতির স্থানীয় এজেন্ট মেসার্স এসআর ট্রাক্টরস ২০০৪ সালে টাটার ৭৩টি বাস তৈরি করে। কিন্তু তৈমুর গাড়িগুলো বুঝে না নিয়ে এসআর ট্রাক্টরসের মালিক শামসুল হুদার কাছে ২২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। টাকা না দিলে তার প্রতিষ্ঠানকে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করারও হুমকি দেয়া হয়। শামসুল হুদা বাধ্য হয়ে বিভিন্ন সময় জনতা ব্যাংকের ১২টি পে-অর্ডারের মাধ্যমে তৈমুর আলমকে ২২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ঘুষ দেন।

এ মামলার রায়ে তৈমুরকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ২৫ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। অপর মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, তৈমুর আলম খন্দকার ২০০৬ সালে সিএনজি স্টেশনের জমি বরাদ্দের জন্য খিলক্ষেতের নিকুঞ্জ মডেল সার্ভিস সেন্টার নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ২৫ লাখ টাকা ঘুষ নেন। এ মামলায়ও তৈমুরকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ২৫ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত।

যৌথ বাহিনীর সদস্যরা গত বছরের ১৮ এপ্রিল তৈমুরকে গ্রেফতার করে। তার আটকের দিন থেকে এ সাজা কার্যকর হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

তথ্য সূত্র: দৈনিক যুগান্তর, ১৩ জুন ২০০৮

This entry was posted in তৈমুরের দুর্নীতি, যুগান্তর. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s