আইভীকে বিজয়ী ঘোষণা, শামীমের ভরাডুবি

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র হলেন সেলিনা হায়াত্ আইভী। আজ রোববার দিবাগত রাত ১২টা ৪৭ মিনিটে আইভীকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা বিশ্বাস লুত্ফর রহমান। আইভী তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শামীম ওসমানের চেয়ে ১ লাখ ১ হাজার ৩৪৩ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। অপরদিকে
নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানো বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার পেয়েছেন মাত্র ৭ হাজার ৬১৬ ভোট।
আইভী এ জয়কে জনগনের জয় উল্লেখ করে তা জনতাকেই উত্সর্গ করেছেন। অন্যদিকে এ নির্বাচনকে সাজানো উল্লেখ করে শামীম ওসমান বলেছেন, ‘আগে যদি বুঝতাম, তাহলে অংশ নিতাম না।’ আর তৈমুর আলম খন্দকার বলেছেন, ‘দল ও চেয়ারপারসনের প্রতি আনুগত্য দেখাতেই শেষ মুহূর্তে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়ে নিজেকে কোরবানি দিয়েছি।’
চাষাঢ়ার শহীদ জিয়া হলে আনুষ্ঠানিকভাবে ১৬৩টি কেন্দ্রের এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এতে দেখা যায়, সেলিনা হায়াত্ আইভী পেয়েছেন ১ লাখ ৮০ হাজার ৮১৯ ভোট। আর আওয়ামী লীগ-সমর্থিত মেয়র পদপ্রার্থী শামীম ওসমান পেয়েছেন ৭৮ হাজার ৭০৫ ভোট। বিএনপি-সমর্থিত মেয়র পদপ্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার পেয়েছেন ৭ হাজার ৬১৬ ভোট। তবে তৈমুর শনিবার গভীর রাতে নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানোর ঘোষণা দেন।
এছাড়াও অপর তিন মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম ১ হাজার ৮৫৫ ভোট, আতিকুল ইসলাম নান্নু মুন্সী ৬ হাজার ১২ ভোট, শরীফ আহমেদ ১ হাজার ৪৯৯ ভোট পেয়েছেন।
নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা চার লাখ ৪ হাজার ১৯৮ জন। তাদের মধ্যে ২ লাখ ৭৬ হাজার ৩২৯ জন তাদের ভোটধিকার প্রয়োগ করেন। নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছে ৬৯.৯২ ভাগ।

সূত্রঃ প্রথম আলো | ৩১ অক্টোবর ২০১১

This entry was posted in প্রথম আলো. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s